খুবিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮ তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত


আজ ১৭ মার্চ ২০১৭খ্রি. তারিখ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়। সকাল সাড়ে ৮ টায় জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এরপর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, খানজাহান আলী হল, অপরাজিতা হল, খানবাহাদুর আহছানউল্ল¬া হল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল ও এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০ টায় আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধু শিশুদের প্রতি খুবই সংবেদনশীল ছিলেন। তিনি শিশুদের খুব ভালোবাসতেন। তিনি শিশুদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন তোমাদেরকে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আরও জানতে হবে। আমরা যদি তাঁর আদর্শ ও কাজ অনুসরণ করি তবে বাংলাদেশ একদিন সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে উঠবে। তিনি তাঁর বক্তব্যে শিশুদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর কয়েকটি ঘটনাও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন প্রকৃতপক্ষে তিনি ছিলেন শিশুদের প্রতি গভীর মনোযোগী, মানব দরদী, এই বাংলা ও বাঙালির প্রতি তাঁর অসীম মমত্ত্ববোধ ছিলো। উদযাপন কমিটির আহবায়ক ইংরেজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. আহমেদ আহসানুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ট্রেজারার খান আতিয়ার রহমান, এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. সরদার শফিকুল ইসলাম এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য ডিসিপ্লিনের ছাত্র আখন্দ মুহাম্মদ খায়রুজ্জামান ও ইংরেজি ডিসিপ্লিনের ফাহাদ রহমান অঝোর। এছাড়া অনুষ্ঠানে আবৃত্তি, দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলা ভাষা ও সাহিত্য ডিসিপ্লিনের সহকারী অধ্যাপক ড. মোঃ দুলাল হোসেন। পরে প্রধান অতিথিসহ অতিথিবৃন্দ বিজয়ী শিশুদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। পরে অদম্য বাংলা চত্ত্বরে আইন ও বিচার ডিসিপ্লিন কর্তৃক এ উপলক্ষে সম্পাদিত একটি দেয়াল পত্রিকা আইনের ছাত্র শেখ মুজিব এর ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন উপাচার্য এবং তিনি ডিসিপ্লিনের এ উদ্যোগের জন্য ধন্যবাদ জানান। পত্রিকাটি সম্পাদনা করেছেন উক্ত ডিসিপ্লিনের প্রভাষক তালুকদার রাসেল মাহামুদ। এছাড়া বাদ যোহর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দু’আ করা হয়। অনুষ্ঠানে উদযাপন কমিটির সদস্য-সচিব ছাত্রবিষয়ক পরিচালক প্রফেসর ড. আশীষ কুমার দাসসহ বিশ্ববিদ্যলয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী, চিত্রাংকণ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিশু ও তাদের অভিভাবকবৃন্দ আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।