এমন সুন্দর পরীক্ষার পরিবেশ যেনো সব বিশ্ববিদ্যালয়ে হয়: অভিভাবকদের প্রতিক্রিয়া, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শেষ হলো খুবির দিনব্যাপী ভর্তি পরীক্ষা


Khulna University photo-3(2)

সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে দিনব্যাপী ভর্তি পরীক্ষা শেষ হয়েছে। আজ ১১ নভেম্বর ২০১৭ খ্রি. তারিখ শনিবার সকাল ৮-৩০ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত ‘এ’ ইউনিটের অধীন বিজ্ঞান প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যা স্কুল এবং জীব বিজ্ঞান স্কুলের, দুপুর ১২ টা থেকে ১-৩০ টা পর্যন্ত ‘সি’ ইউনিটের অধীন ব্যবস্থাপনা ও ব্যবসায় প্রশাসন স্কুল এবং সমাজ বিজ্ঞান স্কুলের, বিকাল ৩ টা থেকে ৪-৩০ টা পর্যন্ত ‘বি’ ইউনিটের অধীন কলা ও মানবিক স্কুল, আইন স্কুল এবং চারুকলা ইনস্টিটিউটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা চলাকালীন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান পরীক্ষার হল পরিদর্শন করেন এবং পরে মেইন গেটের বাইরে অপেক্ষমান অভিভাবকদের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন। উপাচার্য অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন অন্যান্যবার দুই বা তিনদিন ধরে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হতো। আমরা পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে এবার একদিনেই ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করছি। এতে ভোগান্তি লাঘব হয়েছে বলে মনে করি। তিনি আরও বলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে ঐতিহ্য রয়েছে, ভর্তি পরীক্ষার যে শান্তিপুর্ণ পরিবেশ আমরা লালন করে আসছি তা যেনো অব্যাহত থাকে সে ব্যাপারে আমরা সবার সহযোগিতা চাই। এসময় সমবেত অভিভাবকবৃন্দ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠান ও সুশৃঙ্খলাপূর্ণ ব্যবস্থাপনার জন্য উপাচার্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। অভিভাবকদের অনেকই মন্তব্য করে বলেন ‘এমন সুন্দর পরিবেশে যেনো সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হয়। আমাদের কোনোরকম সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়নি।’ উপাচার্য অভিভাবকদের সারিতে যেয়ে হাত মিলিয়ে তাদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. এস এম রফিজুল হক উপাচার্যের সাথে ছিলেন।
এদিকে উপাচার্য সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ায় পরীক্ষার কাজে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকমন্ডলী, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং সার্বিক সহযোগিতার জন্য জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, কেসিসি, বিদ্যুৎ বিভাগ, ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট এবং অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ, এলাকাবাসীসহ সকল মহলকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।